মায়ের সাথে কথা না বলে ফাঁসির মঞ্চে যাবেনা মুফতি হান্নান

ফাঁসির সেলে বন্দি মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জঙ্গি নেতা মুফতি আব্দুল হান্নান তার মায়ের সঙ্গে মোবাইলে কথা বলার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। কারা কর্তৃপক্ষ মোবাইল নম্বর রেখে দিয়ে বলেছেন, কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে সম্ভব হলে মায়ের সঙ্গে হান্নানকে কথা বলিয়ে দেবেন। বুধবার (১২ এপ্রিল) সকালে মুফতি হান্নানের সঙ্গে কারাগারে পরিবারের চার সদস্যের সাক্ষাৎ শেষে তার বড় ভাই আলিমুজ্জামান কারা ফটকের সামনে সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান।

এর আগে বুধবার সকাল ৯টার দিকে মুফতি হান্নান তার স্বজনদের সঙ্গে দেখা করেন। সেখানে উপস্থিত ছিলেন মুফতি হান্নানের বড় ভাই আলিমুজ্জামান, মুফতি হান্নানের স্ত্রী জাকিয়া পারভিন রুমা, বড় মেয়ে নিশি খানম ও ছোট মেয়ে নাজরিন খানম।

মুফতি হান্নানের স্ত্রী, “তিনি (মুফতি হান্নান) বলেছেন ‘যে কদিন হায়াত আছে ওই কয়দিনই বেঁচে থাকবো। দোয়া করবেন আল্লাহ তায়ালা যেন আমাকে নাজাত দান করেন, হেফাজত করেন এবং ঈমানের সঙ্গে যেন মৃত্যুবরণ করতে পারি। আমাকে মিথ্যা মামলায় জড়িত করে এ অবস্থায় দাঁড় করানো হয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, ‘মুফতি হান্নান সবার কাছে দোয়া চেয়েছে। মা’কে সালাম জানিয়েছে, তার কাছে দোয়া চেয়েছে।’

মুফতি হান্নানের বড় ভাই আলিমুউজ্জামান বলেন, মুফতি হান্নানের ফাঁসি কার্যকর করা হলে তার মরদেহ গ্রামের বাড়িতে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করার অনুরোধ করেছেন তারা। কারা কর্তৃপক্ষ বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে তাদের জানাবেন বলে আশ্বস্ত করেছে।

মুফতি হান্নান তার সন্তানদের প্রতি খেয়াল রাখতে বড় ভাইকে অনুরোধ করেছে এবং সবার সঙ্গে তাদের মিলেমিশে থাকতে বলেছে।

এদিকে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মিজানুর রহমান বলেন, ‘মুফতি হান্নানের মায়ের সঙ্গে এখনও কথা বলার সুযোগ দেওয়া হয়নি।’

তিনি জানান, বুধবার সকাল ৭টার দিকে মুফতি হান্নানের দুই মেয়ে, স্ত্রী ও বড় ভাই কারাগারে পৌঁছান। কারা কর্তৃপক্ষের ডাকে তারা সাক্ষাৎ করতে আসেন। আনুষ্ঠানিকতা শেষে সকাল পৌনে ৮টার দিকে তাদের সাক্ষাতের জন্য ভেতরে ডেকে পাঠানো হয়। সকাল সোয়া ৮টা থেকে আনুমানিক ৯টা পর্যন্ত তারা কথা বলেছেন।

Also read :