Home / Bangladesh / বৃক্ষরোগে আক্রান্ত আরো কয়েকজন ! ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ছে ভাইরাস

বৃক্ষরোগে আক্রান্ত আরো কয়েকজন ! ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ছে ভাইরাস

বাংলাদেশের নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলার বালুরচরে এবার দশ বছর বয়সী সাহানা খাতুন নামের এক কিশোরী ‘বৃক্ষমানব সিনড্রোমে’ আক্রান্ত হয়েছেন। ডাক্তাররা ধারণা করছেন, এই রোগে আক্রান্ত সাহানাই প্রথম ‘বৃক্ষমানবী’। আর এ রোগনির্ণয় সঠিক হয়ে হলে বিশ্বব্যাপী ‘এপিডারমোডিসপ্ল্যাসিয়া ভেরুসিফরমিস’ এ আক্রান্ত জনগোষ্ঠীর একজন হবেন সাহানা। ইতিমধ্যেই বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে সাহানাকে নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।

বিবিসি প্রতিবেদনে বলা হয়, ১০ বছর বয়সী সাহানার মুখে চারমাস আগে ছোট ছোট গাছের শেকড়ের মতো জিনিস দেখা যায়, তবে কিছুদিনের মধ্যেই তা বাড়তে থাকে। আর এতে সাহানার বাবা চিন্তিত হয়ে পড়েন। সাহানাকে গ্রামের বাড়ি থেকে ঢাকা মেডিক্যাল হসপিটালে নিয়ে আসেন তিনি। চিকিৎসকরা বলছেন, সাহানা বিরল রোগে আক্রান্ত। তবে তার শরীরে এ রোগের মাত্রা অনেক কম। তাকে দ্রুত সারিয়ে তোলা সম্ভব হবে।

ঢাকা মেডিকেলের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সাহানা খাতুনও আবুল বাজানদারের রোগে আক্রান্ত। তবে অতটা গুরুতর নয়। চিকিৎসায় সাহানার দ্রুত সেরে ওঠা সম্ভব। সাহানাই সম্ভবত প্রথম নারী যে এই ‘বৃক্ষ’ রোগে আক্রান্ত।

এদিকে, সাহানার বাবা দিনমজুর মোহাম্মদ শাহজাহান মিয়া এএফপি-কে বলেন, ‘আমরা খুব গরিব। মাত্র ছয় বছর বয়সে আমার মেয়ে তার মাকে হারায়।’ শেকড় অপসারণ করে চিকিৎসকরা তার মেয়ের সুন্দর মুখ ফিরিয়ে দিবে বলে আশা প্রকাশ করেন শাহজাহান। গত ২৯ জানুয়ারি সাহানাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। এর আগে বাংলাদেশে প্রথম এই রোগে আক্রান্ত হন আবুল বাজানদার নামে এক যুবক। গাছের মতো প্রায় ৫ কেজি শেকড় হয়েছিল ২৭ বছর বয়সী আবুল বাজানদের। তবে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসার পর তিনি এখন অনেকটাই সুস্থ।

Share with your friends !

[X]