মুঠোফোনে ডেকে নিয়ে একসাথে দুই ছাত্রীকে রাতভর ধর্ষণ

প্রেমের ফাঁদে ফেলে দুই স্কুলছাত্রীকে মুঠোফোনে ডেকে এনে মুখ ও হাত-পা বেঁধে রাতভর ধর্ষণ করেছে একদল লম্পট। ঢাকার ধামরাইয়ের ফুটনগরে প্রস্তাবিত আবাসিক এলাকার পরিত্যক্ত ঘরে সোমবার রাতে ঘটনাটি ঘটে।

দফায় দফায় ধর্ষণের ফলে ছাত্রীরা জ্ঞান হারিয়ে ফেললে ধর্ষকরা তাদের মৃত ভেবে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। শেষ রাতে একজনের জ্ঞান ফিরলে চিৎকার করে। আশপাশের লোকজন এসে রক্তাক্ত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে ধামরাই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় পুলিশ গতকাল চারজনকে আটক করে। তারা হলো ফুটনগর দ্বিতীয় খণ্ড গ্রামের ইকবাল হোসেন, সুমন মিয়া; সাভারের তারাপুর মসজিদ গ্রামের সাকিব হাসান সুরুজ ও আকাশ মিয়া। অভিযুক্ত আরও তিনজন পলাতক বলে জানায় পুলিশ।

Video clip of Rape from YouTube

এ ব্যাপারে এক ছাত্রীর বাবা ধামরাই থানায় মামলা করেছেন। ভুক্তভোগী দুই ছাত্রী ও পুলিশ জানায়, ইকবাল হোসেন ও সুমন মিয়া সাভারের ব্যাংক কলোনি এলাকার দুই ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এর সূত্র ধরে সোমবার সন্ধ্যায় মুঠোফোনে ওই ছাত্রীদের ফুটনগরে নিয়ে যায় তারা। সেখানে ইববাল ও সুমনের আরও পাঁচ বন্ধু অপেক্ষা করছিল। সাত বন্ধু মিলে দুই তরুণীর মুখ-হাত-পা বেঁধে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ধামরাই থানার ওসি রিজাউল হক জানান, গ্রেফতাররা দুই ছাত্রীকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। পলাতকদের ধরতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চলছে।

ফেসবুকের আলোচিত ডিএসইউ (DSU) গ্রুপের ৩ এডমিন গ্রেপ্তার

অবশেষে গ্রেপ্তার হলো বহুল আলোচিত ডেসপারেটলি সিকিং আনসেনসর্ড (DSU) গ্রুপের তিন এডমিন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দীর্ঘদিন ধরে পর্নোগ্রাফি ছড়ানো, উস্কানিমূলক ও অশ্লীল বক্তব্য এবং নানাভাবে মেয়েদের হয়রানির অভিযোগে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

 

প্রতিষ্ঠার পর থেকে তথ্যপ্রযুক্তির অপব্যবহার করে আসছে ডেসপারেটলি সিকিং আনসেনসরড Desperately Seeking-Uncensored(DSU) নামের ওই ফেসবুক গ্রুপের সদস্যরা। তারা বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ও দেশের কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছাত্রীদের ব্যক্তিগত ভিডিও ফাঁস এবং অন্যের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে পর্নোগ্রাফি প্রচার করত। এসব অভিযোগে ওই গ্রুপের সক্রিয় ৩ এডমিনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার কর‍া হতে পারে আরো ১৬০ জন সক্রিয় সদস্যকে। দীর্ঘদিন যাবৎ এদের উপর নজরদারি করে এদের কার্যকলাপ দেখা হয়েছে।

 

বৃহস্পতিবার দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান যুগ্ম কমিশনার (ডিবি) আব্দুল বাতেন। তিনি বলেন, সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে তথ্য প্রযুক্তির অপব্যবহারের দায়ে ডিএমপি’র কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের স্পেশাল অ্যাকশন গ্রুপ তাদের গ্রেফতার করে।

 

গত বুধবার দুপুরে কলাবাগান থানার গ্রীনরোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয় জুবায়ের আহম্মেদ (২১), তৌহিদুল ইসলাম অর্নব (১৯) ও মো. আসিফ রানা (১৮) নামে ডিএসইউ’র ৩ অ্যাডমিন সদস্যকে। এ সময় তাদের নিকট থেকে কম্পিউটার হার্ডডিস্ক ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।

 

তিনি আরো বলেন, এই গ্রুপের সদস্য সংখ্যা ১ লক্ষ ২২ হাজার। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই দেশের মেয়েদের প্রতি তথ্য প্রযুক্তির অপব্যবহার করে সাইবার অত্যাচার চালিয়ে আসছিল গ্রুপটি। আব্দুল বাতেন বলেন, গ্রুপটিতে ১৮/২০ রয়েছে শুরু এডমিন দেখার জন্য। মালয়েশিয়া থেকে রাহুল চৌধুরীই মূলত এই ফেসবুক গ্রুপটি পরিচালনা করে থাকেন। তিনি জানান, অবাধে ব্যক্তিগত আক্রমন, লাইভ পর্নসহ যৌনতার বিকৃত বহিঃপ্রকাশ চলে। তারা যে কোন অপরিচিত মানুষের ছবি, গোপনে ধারণকৃত ভিডিও লিংক ফেসবুকে শেয়ার করে তাতে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করে। এদের দ্বারা সমাজের প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তি, অভিনেতা, অভিনেত্রী থেকে শুরু করে সাধারণ জনগন অনলাইনে লাঞ্চনার শিকার হচ্ছেন।

 

এই ডিএমপি কর্মকর্তা জানান, এই কাজে তাদের একটি বিশাল ওয়েব সাইট রয়েছে। ইদানিং এই গ্রুপটি ঢাকা মেডিকেল কলেজে পড়ুয়া এক মেয়ের ব্যক্তিগত ভিডিও অনলাইনে ফাঁস করে দেয়। মেয়েটির পরিচয় ও তার ভিডিওর লিংক এক লক্ষ বাইশ হাজার সদস্যের এই বিশাল গ্রুপ হতে একের পর এক শেয়ার হয়ে ফেসবুকে মূহুর্তেই ভাইরাল হয়ে যায়। তিনি বলেন, গ্রুপটির বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করে কাউন্টার টেরোরিজম। প্রাপ্ত গোপন তথ্যের ভিত্তিতে গ্রুপের এডমিনের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিদের গ্রেফতারে অভিযান পরিচালিত হয়। গতকাল দুপুর পর্যন্ত ঢাকার কলাবাগান থানাধীন গ্রীনরোডস্থ পান্থপথের ১৫২/৭ নম্বর বাড়ির ৬ষ্ঠ তলার ফ্ল্যাটে অভিযান পরিচালনা করে ৩ জন এডমিনকে গ্রেফতার করা হয়।

 

তিনি আরো বলেন, ফেসবুক পেইজটি বন্ধ করার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি ডিএসইউ এর মূল ওয়েবসাইটটি বন্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

‘হিজড়া’ খুনের বিচারের দাবী জানাতে ঢাকায় জড়ো হচ্ছে সারাদেশের কয়েকলাখ হিজড়া !

‘হিজড়া’ খুনের বিচারের দাবী জানাতে ঢাকায় জড়ো হচ্ছে সারাদেশের কয়েকলাখ হিজড়া !

 

এবার হিজড়ানেতা খুন হবার তিনদিনেও কেউ গ্রেপ্তার না হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছে বাংলাদেশ হিজড়া কল্যাণ ফাউন্ডেশন। ইতিমধ্যেই সারাদেশ থেকে হিজড়াদের সংঘগুলো ঢাকা এসে দলবেধে যোগ দিচ্ছে এই আন্দোলন সমাবেশে !

 

শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবিদা সুলতানা মিতু এই আবেদন জানান। তিনি বলেন, “হায়দার হিজড়াকে গ্রামের বাড়িতে সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে খুন করেছে। খুনিরা এখনো গ্রেপ্তার হয়নি। আমরা কোনো বিচারই পাচ্ছিনা। তাহলে তৃতীয় লিঙ্গ হিসেবে সরকার আমাদেরকে কেন স্বীকৃতি দিলো?

 

গত ১৪ অক্টোবর জামালপুরের ইসলামপুরে নিজের বাড়িতে বাংলাদেশ হিজড়া-কল্যাণ ফাউন্ডেশনের জেনারেল কমিটির সহসভাপতি হায়দার হিজড়াকে একদল সন্ত্রাসী এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে। তিনি রাজধানীর মগবাজারের হিজড়া গোষ্ঠির ‘গুরু মা’ হিসেবেও দায়িত্বরত ছিলেন।

 

হিজড়া সংগঠনের উপদেষ্টা মেজবা হিজড়া বলেন, “বিভিন্ন সময় গণজাগরণ মঞ্চ বিভিন্ন অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছে। এবারো জানাবে। প্রয়োজনে ইমরান এইচ সরকারকে নিয়ে শাহবাগে গিয়ে ন্যায্য বিচার ছিনিয়ে আনা হবে। হায়দার হিজড়াকে যারা হত্যা করেছে, তাদের ফাঁসি হতেই হবে। এরা মানুষের শত্রু, হিজড়াদের শত্রু, এরা মানুষরূপী পশু।”

 

এরপর ১০০০ হিজড়ারা সম্মিলিত হয়ে মিছিল করে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে হিজড়া কল্যাণ ফাউন্ডেশনের কার্যালয়ে যান।

ছারপোকার প্রতিষ্ঠাতা কাজী নিপু ফেসবুকে ভেরিফাইড

ফেসবুকে ভেরিফাইড স্বীকৃতি পেলেন প্রজেক্ট ছারপোকার প্রতিষ্ঠাতা কাজী নিপু। গত সোমবার রাত ২টায় Kazi Nipu নামে তাঁর পেজটি ফেসবুক কর্তৃপক্ষ  নীল রংয়ের টিক চিহ্ন বা ব্লু ব্যাজ দিয়ে অফিসিয়ালি ভেরিফাইড করে দিয়েছে।

 

মাত্র ৯১ লাইক নিয়ে ভেরিফাইড হয়েছে কাজী নিপুর এই ফেসবুক পেজ। কিভাবে এত অল্প ফ্যান নিয়ে তিনি তাঁর পেজটি ভেরিফাই করলেন, এ বিষয়ে জানতে ‍চাইলে তিনি বলেন, রোববার দুপুরে তা‍ঁর ১৬,৯০০ লাইক সম্বলিত Kazi Nipu নামের ফ্যানপেজ হঠাৎ করেই বাদ হয়ে যায়। এরপর তিনি ফেসবুক কর্তৃপক্ষের নিকট পেজ ফেরত পাবার জন্য আবেদন জানিয়ে ছারপোকা রেকর্ডস (Band Charpoka) এর লাইসেন্স পেপার সাবমিট করলে ফিরতি ইমেইলে তাঁকে নতুন একটি পেজ খুলতে বলা হয়। নতুন করে পেজ খোলার কিছুক্ষণ পরই স্বয়ংক্রিয়ভাবে কাজী নিপুর ফেসবুক পেজ ভেরিফাই হয়ে যায়।

 

Kazi Nipu লিখে ফেসবুকে ‍সার্চ দিলে তা‍ঁর নামের পাশে নীল রংয়ের একটি ছোট টিক চিহ্ন বা ভেরিফাইড ব্যাজ দেখা যাবে। পেজের লিংকঃ https://www.facebook.com/kazinipu.pg

 

কাজী নিপু মূলত একজন ইলেকট্রনিক মিউজিক কম্পোজার। যদিও তিনি সোশ্যাল মিডিয়া এক্টিভিস্ট হিসেবেই অধিক পরিচিত। ছদ্মনামে তিনি তার একাউন্টটি পরিচালনা করেন। ২০১৩’র মাঝামাঝি সময়ে কাজী নিপু তার বন্ধুদের নিয়ে ব্যান্ড ছারপোকা নামে একটি টিম ফর্ম করেছিলেন। এই ব্যান্ডের বেশ কয়েকটি গানও কিছু আনরিলিজড অ্যালবামের সাথে প্রকাশিত হয়েছে। ২০১৪ তে একটি অপেরা শো এর প্রস্তাব আসলে নিপু পারফর্ম করতে দ্বিমত জানালে ব্যান্ডটি ভেঙ্গে যায়। তবে এই টিমের বানানো কিছ‍ু ভিজি মিউজিক এখনো বেশ কয়েকটি কোরিয়ান পিসি গেইমস সিরিজে ব্যবহৃত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ব্যান্ড ছারপোকার আরেক সদস্য সাজ্জাদ রহমান।

 

সামাজিক সমস্যা ও তার সমাধানের পথ নিয়ে লেখালেখির কারণে কাজী নিপু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ব্যাপক জনপ্রিয়। ২০১৫ সালে টিএসসিতে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে নারী লাঞ্ছনা ও যৌন নিপিড়নের ঘটনা ঘটলে কাজী নিপু ফেসবুকে এর বিরুদ্ধে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে প্রতিবাদ জানান। এবং প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। Moja Loss, Bangladeshism সহ ফেসবুকের বড় বড় পেজগুলো তখন একসাথে যোগদান করে এই প্রতিবাদ সমাবেশে। আলোচিত সেই স্ট্যাটাসটি বিভিন্ন স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেলের নিউজে দেখানো হয়।  দেশের জনপ্রিয় রেডিও স্টেশনগুলো বাদ যায়নি স্ট্যাটাসটি অন এয়ারে পড়ে শোনানো থেকে ! তবে এরপরই ফেসবুক আইডি এবং পেজ সহ যোগাযোগের সব উপায় বন্ধ করে দেন তিনি। এর ঠিক একবছর পর এবার কাজী নিপু ভেরিফাইড পেজ নিয়ে ফিরে এলেন ফেসবুকে। এবং জানিয়ে দিলেন নতুন করে প্রজেক্ট ছারপোকা নিয়ে মাঠে নামার কথা। দেখা যাক, এই পথ কতটা স‍ুবিস্তৃত হয় ! – Radio Today

ধূমপায়ীদের জন্য রীতিমত দুঃসংবাদ।  খুবসম্ভব আগামী দুমাসের মধ্যেই নতুন আইন বাস্তবায়নের মাধ্যমে সিগারেটের দাম বাড়িয়ে ফেলা হচ্ছে। তাও দশ টাকা বিশ টাকা নয়, প্যাকেট প্রতি ৮০০ টাকা ! হ্যাঁ, শুধু ২২০ টাকার এক প্যাকেট বেনসন সিগারেটের জন্যই আপনাকে গুনতে হবে দেড় হাজার টাকা !

সিগারেটের মূল্যতালিকা দেখতে এখানে ক্লিক করুন

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত নতুন বাজেট পরিকল্পনায় জানানো হয়েছে, ২০২৫ সালের মধ্যে দেশ থেকে সিগারেটসহ তামাকজাত দ্রব্য সেবনের অভ্যাস দূর করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। সে অনুযায়ী আগামী চার অর্থবছরে ধাপে ধাপে তামাক ও তামাকজাত পণ্যের ওপর কর বাড়িয়ে ৪৬ শতাংশ করা হবে। এ লক্ষ্য স্থাপনের প্রয়োজন অনুযায়ী এক প্যাকেট দামী সিগারেটের জন্য একজন ধূমপায়ীকে গুনতে হবে ৮০০ টাকার মত।

 

মোটকথা কমদামী কিংভা বেশি দামী যেকোনো সিগারেটের অপরই বসানো হবে ৭০% ট্যাক্স। অর্থা‍ৎ ১০ টাকার সিগারেট কিনতে আপনাকে খরচ করতে হবে ৭০ টাকা ! আগামী জুলাই মাসের শেষ দিকে চুক্তিটি সাক্ষরিত করা হবে বলে জানিয়েছেন মাদক দমন ও নির্মূল বিভাগের এক উর্ধতন কর্মকর্তা।

 

এছাড়া ২০১৯ সাল নাগাদ দূষণ সৃষ্টিকারী শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য ভর্তুকি বন্ধেরও পরিকল্পনা করেছে সরকার। শুধু তা-ই নয়, এগুলোর ওপর করও বাড়ানো হবে বলে জানানো হয়েছে ওই পরিকল্পনায়।

ফেসবুকে ভিডিও বার্তা দিয়ে মডেল সাবিরার আত্মহত্যা !

ফেসবুকে সুইসাইড নোট ও ভিডিও বার্তা দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন মডেল সাবিরা হোসাইন। মঙ্গলবার ভোর ৫টার মিরপুরের রূপনগরে বাসা থেকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ পাওয়া গেছে।

 

ধারণা করা হচ্ছে, নির্ঝর নামে এক যুবকের সাথে প্রেমের জের ধরেই আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন সাবিরা। তাদের দুজনের মধ্যে দীর্ঘদিন শারিরিক সম্পর্ক থাকলেও বিয়ের ব্যাপারে যুবকের পরিবারের অসম্মতি ছিল। বিষয়টি মেনে নিতে না পেরেই আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন এ মডেল। সাড়ে নয় মিনিটের ভিডিও বার্তায় মডেল তার আত্মহত্যার ঘোষনাও দেন।

 

আত্মহত্যর আগে ভিডিওতে দেখা গেছে চাকু হাতে বারবার পেটে ও গলায় চাপ দেওয়ার চেষ্টা করেন তিনি। কিন্তু কাজ না হওয়ায় ৯ মিনিটের ওই ভিডিওর শেষে তিনি বলেন, আমি ব্যর্থ, আপাতত। ওকে নেক্সট অ্যাটেম্প নেব।ভিডিও বার্তা যুক্ত করে ফেসবুক স্ট্যাটাসে সাবিরা লেখেন, ‘আমি তোমাকে দোষ দিচ্ছি না। এটা তোমার ছোট ভাইকে বলা। সে আমাকে যা ইচ্ছে বলেছে। আর বেস্ট পার্ট হলো, সে আমাকে বাসা থেকে বের করে দিয়েছে। আর আমার প্রশ্ন হলো, তোমার কি একটুও ফিল হয়নি? এছাড়াও তিনি লিখেছেন, আমাকে ব্যবহার করবে, সেক্স করবে আর আমি সরে যাবো এটাতো হতে পারে না। বিয়ের কথা বললে তোমার পরিবার অসুস্থ হয়ে যায় আর সেক্সের কথা বললে সব ঠিকঠাক। সবশেষে নির্ঝরকে ট্যাগ করে তিনি লেখেন, আমার মৃত্যুর জন্য সে দায়ী। যদি আমি মারা যাই, তাহলে এর দায় তার।’

 

সাবিরা বেশ কিছু পণ্যের স্থিরচিত্রে মডেল হয়েছিলেন। পাশাপাশি বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসের মডেল হিসেবেও কাজ করেছেন তিনি। মডেলিং ছাড়াও উপস্থাপনায়ও তাকে দেখা গেছে। গানবাংলা টিভিতেও কাজ করতেন তিনি। নিজের আত্মহত্যার বিষয়টি নিয়ে তিনি একটি স্ট্যাটাস ও ভিডিও বার্তাও প্রকাশ করেছেন।

 

 

সাবিরার আত্মহত্যার ভিডিওটি দেখে নিন

ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় হেফাসোড | নিম্মচাপে সাগর উত্তাল

ঘূর্ণিঝড় হেফাসোড আপডেট‍ঃ আবারো নিম্নচাপের প্রভাবে সাগর উত্তাল রয়েছে। এতে নতুন একটি ঘূর্ণিঝড় উৎপত্তি হয়ে বাংলাদেশের দিকে ধেয়ে আসছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

 

প্রাথমিকভাবে ঘূর্ণিঝড়টির নাম দেয়া হয়েছে হেফাসোড। ইতিমধ্যেই চট্টগ্রাম, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দর ও কক্সবাজারকে ৬ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেওয়া হয়েছে। ঢাকা সহ সারা দেশে আজ থেকে পরবর্তী দুইদিন ঝড়ো হাওয়া ও টানা বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

 

ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর ক্ষতি না কাটতেই এরমধ্যেই বিরাজ করলো নতুন ঘূর্ণিঝড় হেফাসোড। যা কিনা রোয়ানুর চেয়ে আরো তিনগুণ বেশি শক্তিশালী হয়ে আঘাত হানবে বলে জানায় ভারতীয় আবহাওয়া দপ্তরের বিশেষজ্ঞরা।

 

পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ মাজহার রহমানের ভাষ্য, নিম্নচাপের প্রভাবে বৃষ্টি, অস্থায়ী দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বইতে পারে।

 

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলেছে অধিদপ্তর। নিম্নচাপের প্রভাবে চট্টগ্রামে এরই মধ্যে বৃষ্টি হচ্ছে।

 

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, নিম্নচাপটি চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ১৬০০ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে , কক্সবাজার থেকে ১৬৩৩ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে , মংলা থেকে ১৩২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছে। এর প্রভাবে বাতাসের বেগ ঘণ্টায় ২০ থেকে ২৫ কিলোমিটার।

ঢাকা মেট্রো রেল কোম্পানিতে লোক লাগবে প্রায় ২ হাজার। বিভিন্ন পর্যায়ে দক্ষ ও স্বল্প দক্ষ লোকবল নিয়োগ দিতে পদ সৃষ্টির প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

 

দেশের বিভিন্ন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাসকৃতদের এসব পদে অগ্রাধিকার দেয়া হবে। সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে তথ্যটি জানা গেছে। তারা আরো জানায়, জাইকার অর্থায়নে মেট্রোরেল কোম্পানিতে ১ হাজার ৯৬৩টি পদ সৃষ্টির জন্য পরামর্শ দিয়েছেন জাপানিজ পরামর্শকরা। ঢাকা মাস ট্রানজিট কোম্পানিকে (ডিএমটিসি) এই পরামর্শ দেয় ঢাকা ম্যাস রেপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট (ডিএমআরটিডি)।

 

পরামর্শ মতে, অ্যাডমিনিস্ট্রেশন, প্ল্যানিং ও অপারেশনে পদ সৃষ্টির প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

 

জানা গেছে, প্রায় দুই হাজার পদের বেতন স্কেল হবে সরকারি চাকুরীজীবীদের চেয়েও বেশি। এখনো পদগুলোর প্রস্তুতি ও বেতন স্কেল তৈরি হয়নি। প্রায় ২ হাজার পদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মহাব্যবস্থাপক, উপ-মহাব্যবস্থাপক এবং ব্যবস্থাপক থাকছে।

 

জাইকার (জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি) পক্ষ থেকে লোকবল নিয়োগের ব্যাপারে বলা হয়েছে, ঢাকা মেট্রো রেল (Dhaka Metro Rail) কোম্পানিতে যাতে কোনোরকম দুর্নীতি না হয়, সেজন্যই কর্মকর্তাদের বেতন-ভাতা সরকারি চাকরিজীবীদের চেয়ে বেশি ধরা হবে বলে সূত্রে জানা গেছে।

 

জানা গেছে, মেট্রোরেল কোম্পানিতে প্রাথমিক পর্যায়ে দুই হাজার জনবল নেয়া হলেও এর পরিমাণ আরো বাড়তে পারে। দীর্ঘমেয়াদেই লোকবল নিয়োগ দেয়া হতে পারে। সংশ্লিষ্টদের মতে, বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নকালেই যে জনবল প্রয়োজন তা নয়। সেগুলো রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচালনার জন্যও জনবল প্রয়োজন

‍ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়ে আশেপাশের সবকিছু নিশ্চিহ্ন হয়ে গেলেও সামান্যতম ক্ষতি হয়নি এই মসজিদটার ! এ যেনো এক অবাক করা কান্ড।

 

সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ভয়ংকর ঘূর্ণিঝড় রোয়ানু (Cyclone Roanu) এর আঘাতে নিশ্চিহ্ন হওয়া একটি এলাকায় এই মসজিদ টিকে থাকার ঘটনাটি ঘটেছে। ছবিটি চট্টগ্রাম নেভালে তোলা। এটি সেখানকার একটি মসজিদ, যার আশেপাশের প্রতিটা ঘরবাড়ি ও দোকানপাট ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর আঘাতে ভেঙ্গে তছনছ হয়ে গেছে। এমনকি মসজিদের সামনের রাস্তার পিচগুলো ঝড়ের তান্ডবে উড়ে গেছে। শুধু টিকে আছে এই মসজিদ !

 

এলাকাটি পরিদর্শনের জন্য যাওয়া হলে সাংবাদিকদের চোখে বিষয়টি ধরা পড়ে। এবং পরবর্তীতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছবিটি ব্যাপক আলোড়ন জাগায়। ফেসবুক পেজ থেকে দেখে নিন ছবিগুলো – Radio Today Fm 89.6

কোলে বসিয়ে ঢাকার অভিজাত স্কুলে ছাত্রীদের নোংরামির চিত্র

ক্লাসরুমে এক মেয়েকে কোলে বসিয়ে উত্তেজক ভঙ্গিতে পেছন থেকে শক্ত করে চেপে ধরে রেখেছে আরেক মেয়ে।

 

এক ছাত্রীকে কোলে নিয়ে বসে থাকা আরেক ছাত্রী, হ্যাঁ এরা এই ক্লাসেরই দুই ছাত্রী। ক্লাসে রয়েছে আরো শখানেক ছাত্র ছাত্রী। সবার সামনে লজ্জা শরম ভুলে এভাবেই সমকামীতায় লিপ্ত হলো ঢাকার অভিজাত স্কুলের দুই মেয়ে। এভাবেই এখানে চলে নোংরামি। শুধু সমকামীতাই নয়, আরো নানা রকমের অসামাজিক কর্মকান্ড হয় এখানে।

 

কখনো শিক্ষক টয়লেটে যায় শিক্ষিকার সাথে। আবার কখনো ছাত্রী টয়লেট করতে গিয়ে যৌনকর্মে লিপ্ত হয় ছাত্রর হাতে। এমনকি ক্লাসরুমেই দেখা যায় একজন আরেকজনকে কোলে বসিয়ে যৌনকর্ম করছে। এটা যেনো কোনো ব্যাপারই না তাদের কাছে। এ ব্যাপারটাকে খুবই স্বাভাবিক মনে করে তারা। এখানে ক্লিক করে ইউটিউব থেকে দেখে নিন পুরো ভিডিও

 

আসুন আমরা এসব নোংরামির বিরুদ্ধে সোচ্চার হই। শিক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল আনা নেয়া বন্ধ হলে এধরণের ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়ানো বন্ধ হবে।

 

(লেখাটি ফেসবুক থেকে সংগ্রহিত)